ঢাকাবৃহস্পতিবার, ১লা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, বিকাল ৪:০৮
আজকের সর্বশেষ সবখবর

যাতায়াতের রাস্তা বন্ধ করে দেয়ায় অবরুদ্ধ আশ্রয়ণ প্রকল্পের ৩৭ পরিবার

আরফিনুল ইসলাম, নীলফামারী প্রতিনিধি
অক্টোবর ১১, ২০২২ ১২:১১ অপরাহ্ণ
পঠিত: 43 বার
Link Copied!

নীলফামারীর ডোমারে যাতায়াতের রাস্তা বন্ধ করে দেয়ায় অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে মুজিববর্ষ উপলক্ষে গৃহহীনদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দারা। উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড খাটুরিয়া ডাঙ্গাঁপাড়া দীঘিরপার এলাকায় অবস্থিত আশ্রয়ণ প্রকল্পের সুবিধাভোগী ৩৭টি পরিবার চলাচলের রাস্তা না থাকায় এই অসুবিধার সম্মুখীন হয়েছেন।

এ ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনারের (ভূমি) কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দারা অভিযোগ, এখানে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ৩৭টি পরিবারের প্রায় ৩৫০ জন মানুষ গত ৬মাস থেকে বসবাস করে আসছে। প্রকল্পের বাসিন্দারা মৃত কুদ্দুস আলীর জমির উপর দিয়ে চলাচল করে। আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দারা তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে রাস্তা ছাড়া ঘর নিবেনা এমন দাবী করলে তিনি জানিয়েছিলেন ‘যে রাস্তা দিয়ে বর্তমানে আপনারা চলাচল করছেন সেই রাস্তা দিয়েই চলাচল করবেন। যখন রাস্তা বন্ধ করবে তখন জানাবেন, আমরা ব্যবস্থা নিব।’

এক সপ্তাহ আগে জমির মালিক কৃদ্দুস আলীর মেয়ে উম্মে কুলছুম তাদের জমিতে বাঁশের বেড়া দিয়ে চলাচলের রাস্তাটি বন্ধ করে দেয়। এতে অসুবিধায় পরেছে আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দারা। রাস্তা বন্ধ করার ফলে আশ্রয়ণ প্রকল্পের সুবিধাভোগীরা তাদের ভ্যানগাড়ী ও অটো চার্জার ভ্যান নিয়ে বের হতে না পারায় পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করে আসছে।

আব্দুর রাজ্জাক নামে এক ভ্যান চালক জানান, গত এক সপ্তাহ থেকে ভ্যান বের করতে না পারায় পরিবারের ১২জন সদস্য নিয়ে এক বেলা খেয়ে দিন যাপন করছি। রাস্তা না থাকলে এই বাড়ীর কোন মূল্য নাই। আমাদের একটাই দাবী এখানে রাস্তা করে দেওয়া হোক।

সাদেকা নামে আর এক সুবিধাভোগী জানান, রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ার ফলে আমার সন্তানরা স্কুলে কিংবা মাদ্রাসায় যেতে পারছেনা। স্বামী ভ্যান নিয়ে বাজারে যেতে না পারায় আমরা নিদারুণ কষ্টে দিন যাপন করছি।

সুবিধাভোগী আলমগীরের মা তসকিনা বেগম অভিযোগ করে বলেন, প্রধানমন্ত্রী খুশি করে আমাদের ঘর দিয়েছেন আমরা খুশি করেই তা গ্রহন করেছি। এখন রাস্তা না থাকায় আমরা ভোগান্তিতে পরেছি। যদি রাস্তা না থাকে তবে এই ঘর থেকে কি হবে।

রাস্তা বন্ধের ব্যাপারে জানতে চাইলে জমির মালিক কৃদ্দুস আলীর মেয়ে উম্মে কুলছুম বলেন, আমরা কারো রাস্তা বন্ধ করিনি। আমরা শুধু বাঁশের বেড়া দিয়ে আমাদের জমিটা ঘিরে দিয়েছি। মানুষের চলাচলের কারণে আমাদের আবাদ নষ্ট হয় তাই এমনটা করা।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রমিজ আলম অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পর্যবেক্ষণ করে সমস্যা নিরসনে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।