ঢাকাবুধবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রাত ১০:০২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ভান্ডারিয়ায় বেড়েছে ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যা, হাসপাতালে শয্যা সংকট

স্টাফ রিপোর্টার
এপ্রিল ২৯, ২০২২ ২:২৭ অপরাহ্ণ
পঠিত: 139 বার
Link Copied!

প্রচন্ড তাপদাহে সারা দেশের ন্যায় পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় ক্রমশ বেড়ে চলছে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। জানা যায় এ উপজেলায় জেলার সবথেকে বেশি আক্রান্ত রোগী রয়েছে। হাসপাতালের বেড ছাড়াও রোগীদের মেঝেতে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে। রোগীদের সেবা দিতে হিমসিম খেতে হচ্ছে কর্তৃপক্ষের।

শুক্রবার (২৯ এপ্রিল) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সরজমিনে ঘুরে দেখা যায়, হাসপাতালে ডায়রিয়া রোগীর কারণে কোথাও দাড়াবার মতো যায়গা নেই। ডাইরিয়া রোগীর চাপ ও প্রচন্ড গরমের কারনে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে রোগীদের।

এছাড়া পাশ্ববর্তী উপজেলা রাজাপুর ভান্ডারিয়া উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কাছে হওয়ায় সেখান থেকেও অনেক রোগী এসে ভর্তি হচ্ছে।স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গত ২৪ ঘন্টায় ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছে ৭৭ জন।গত এক মাসে রোগী ভর্তি হয়েছে ১০৩৮ জন। এদের মধ্যে বেশিরভাগ রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।হাসাপাতালে ৩ সদস্যের একটি করে টিম করে মোট ৮টি টিম কাজ করছে।

ভান্ডারিয়া উপজেলার পূর্ব-ভান্ডারিয়া এলাকার আব্দুল রশিদ (৬০) জানান, তিনি নিজে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে গতকাল বিকেলে হাসপাতালে ভর্তি হন। রোগীর সংখ্যা বেশি হওয়ায় বেড না পেয়ে ফ্লোরে থাকতে হচ্ছে।

রাজাপুর উপজেলার গালুয়া ইউনিয়নের জান্নাতি (১) এর বাবা শাহজালাল জানান,গতকাল আমার মেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে আমাদের উপজেলা থেকে ভান্ডারিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কাছাকাছি হওয়ায় মেয়ে নিয়ে এসে হাসপাতালে ভর্তি করি।এখানে রোগীর সংখ্যা অনেক বেশি হওয়ায় বেড না পেয়ে মেঝেতে থাকতে হচ্ছে।

দায়িত্ব প্রাপ্ত নার্স সাজিদা জানান,স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গত ২৪ ঘন্টায় ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছে ৭৭ জন। ৫০ শয্যা থেকে বর্তমানে ১০০ শয্যায় উন্নিত হলেও এই হাসপাতালে ৩১ শয্যার জনবল দিয়ে কোন রকম চিকিৎসা সেবা দিতে আমাদের হিমসিম খেতে হচ্ছে।প্রতিদিন প্রায় গড়ে ১০০ থেকে ১৫০ ডায়রিয়া রোগী ভর্তি হচ্ছে। জনবলের প্রায় তিনগুন  ডায়রিয়ার রোগী ভর্তি থাকায়  সেবার মানোন্নয়নের চেষ্টা  বাঁধাগ্রস্থ হচ্ছে।

হাসপাতালে ডায়রিয়া রোগী বৃদ্ধি ও শয্যা সংকটের বিষয়টি নিশ্চিত করে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ কামাল হোসেন মুফতি বলেন, ডায়রিয়ার এত রোগী একসাথে  ভর্তি হওয়ার কারণে চিকিৎসা দিতে হিমসিম খেতে হচ্ছে।তবে বর্তমানে ডাক্তার, স্যালাইন ও ওষুধের সংকট নেই।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।